1. ahekram2006@gmail.com : ah ekram : ah ekram
  2. asadmd7195@gmail.com : JB Admin : JB Admin
  3. janatarbartabd@gmail.com : jb editor : jb editor
গাইবান্ধায় হাঁস পালন কে কেন্দ্র করে মারামারি ঘটনায় নাক কেঁটে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া যায় - দৈনিক জনতার বার্তা
সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ১২:৫৫ অপরাহ্ন

গাইবান্ধায় হাঁস পালন কে কেন্দ্র করে মারামারি ঘটনায় নাক কেঁটে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়

মোঃ রাতুল মিয়া, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ১৯ জুন, ২০২২

মোঃ রাতুল মিয়া, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ

গাইবান্ধা সদর উপজেলা বোয়ালী ইউনিয়ন এর ২নং ওয়ার্ডে এর দক্ষিণ ফলিয়া (নোয়াচরা ব্রিজ) সংলগ্ন এলাকায় একটি হাঁস নিয়ে মারামারি ঘটনায় নাক কাঁটার ঘটনা ঘটে।

অভিযোগে জানা যায়- আসামীগণ একদল দাঙ্গাবাজ ও প্রকৃতির সন্ত্রাসী। বসতবাড়ি সীমানা নিয়ে আসামীগণ এর সাথে দীর্ঘদিন যাবত মনোমালিন্য চলে আসছে।

এমন্তঅবস্তায় গত ১৭/০৬/২০২২ তারিখ অনুমানিক বেলা আসামীদের একটি হাঁস প্রতিবেশির জমিতে কীটনাশক মিশানো ঔষধ খেয়ে অসুস্থ হয়। উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে,ভুক্তভোগীদের উদ্দেশ্য করে গালিগালাজ করে।

এক পর্যায়ে একই দিনে সন্ধ্যা ০৭ঃ৩০ ঘটিকার সময় আসামীগণ ধারালো ছুরি,লোহার রড,বাঁশের লাটি, সাইকেলের চেইন নিয়ে দলবদ্ধ ভাবে ভুক্তভোগীদের বসতবাড়ি ভিতরে প্রবেশ করে এলোপাতারী আঘাত করে।

আসামী- মোঃ নুরুল ইসলাম খুন করার হুকুম দিয়ে তার সহকর্মীদের নিয়ে ভুক্তভোগী মোছাঃ পারভীন বেগম সহ পরিবারের সকল সদস্যদের ওপরে আক্রমণ করলে শরীরের বিভিন্ন জাগায় জখম হয়, ঘটনা স্থানে থাকা সন্ত্রাসী মোঃসুজন মিয়া সহ ভুক্তভোগীর পড়নের কাপড় খুলে শ্লীলতাহানি করে।

সেই সাথে সন্ত্রাসীদের হাতে থাকা দেশিও অস্ত্র দিয়ে আঘাত করলে ঘটনা স্থানেই কয়েক জনের শরীরের আঘাত লাগে, তাদের মধ্যে একজের নাক কেঁটে দেয় ও মাথায় আঘাত করে, ওপর জনের সারা শরীরের আঘাত করে। পরে আশপাশের লোকজন এসে তাদের উদ্ধার করে,গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে ডাক্তাররা তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

আরো জানাযায়-আসামী মোঃসুজন মিয়া,মোছাঃসুফিয়া বেগম ঘটনার সময় ভুক্তভোগীদের টাকা পয়সা সহ স্বর্ণ অলংকার ছিনিয়ে নেয়।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© ২০২০ সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত | দৈনিক জনতার বার্তা বিডি পরিবার
কারিগরি সহায়তায় রাফিউল ইসলাম