1. ahekram2006@gmail.com : ah ekram : ah ekram
  2. asadmd7195@gmail.com : JB Admin : JB Admin
  3. janatarbartabd@gmail.com : jb editor : jb editor
ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে বাস ডাকাতি চক্রের ৬ সদস্য গ্রেফতার! জনতার বার্তা - দৈনিক জনতার বার্তা
সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ১২:৪৬ অপরাহ্ন

ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে বাস ডাকাতি চক্রের ৬ সদস্য গ্রেফতার! জনতার বার্তা

মোঃ নাজমুল হুদা, রংপুর বিভাগীয় প্রধান।
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১

মোঃ নাজমুল হুদা, রংপুর বিভাগীয় প্রধান।

হানিফ পরিবহনের চালক হত্যাসহ বাস ডাকাতির সাথে জড়িত তারা!

সম্প্রতি রংপুর জেলার পীরগঞ্জ এলাকায় হানিফ পরিবহনের চালক হত্যাসহ বাস ডাকাতির সাথে জড়িত সংঘবদ্ধ আন্তঃজেলা বাস ডাকাত চক্রের ৬ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। এ সময় হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত চাকু ও অন্যান্য আলামতও উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন র‍্যাব।

আজ দুপুরে রাজধানীর কাওরানবাজার বাজারে র‍্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান র‍্যাবের লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া উয়িং এর পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

তিনি জানান, গত ৩১ আগস্ট দিবাগত রাতে ঢাকা হতে পঞ্চগড়ের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া হানিফ পরিবহণের একটি বাস রংপুর জেলার পীরগঞ্জ এলাকায় পৌঁছার পর দুর্ধর্ষ ডাকাতির কবলে পড়ে। বাসে যাত্রীবেশী থাকা ডাকাত দলের সদস্যদের ছুরিকাঘাতে বাসের চালক মনজুর হোসেন (৫৫) গুরুতর আহত হয় এবং পরবর্তীতে মৃত্যুবরণ করে।

এই ঘটনায় বাসের সুপারভাইজার মোঃ পইমুল ইসলাম বাদী হয়ে রংপুর জেলার পীরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এই চাঞ্চল্যকর হত্যাসহ ডাকাতির প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১ তাৎক্ষনিকভাবে হত্যাকারী ডাকাত দলের সদস্যদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে দ্রততার সাথে ছায়া তদন্ত শুরু করে এবং গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে।

তিনি আরও জানান, এরই ধারাবাহিকতায় গত ৪ সেপ্টেম্বর রাতে র‌্যাব-১ ও র‍্যাব- ১৩ এর আভিযানিক দল রাজধানীর অদূরে আশুলিয়া ও গাইবান্ধা অভিযান পরিচালনা করে হত্যাসহ ডাকাতির সাথে সরাসরি জড়িত চারজনকে গ্রেপ্তার করে।

তারা হলেন- শ্রী নয়ন চন্দ্র রায় (২২), মোঃ রিয়াজুল ইসলাম ওরফে লালু (২২), মোঃ ওমর ফারুক (১৯), মোঃ ফিরোজ কবির (২০), আবু সাঈদ মোল্লা (২৫), এবং (৬) শাকিল মিয়া (২৬), । এ সময় ধৃত ব্যক্তিদের নিকট হতে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরিসহ ০৫ টি ছুরি, লুটকৃত ০১টি মোবাইল ফোন এবং তাদের ব্যবহৃত ০৫ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। ধৃত ব্যক্তিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বর্ণিত হত্যাসহ ডাকাতির সাথে সরাসরি জড়িত থাকার কথা জানায়।

ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে র‍্যাব জানায়, গত ৩১ আগস্ট রাতে হানিফ পরিবহণের একটি নন এসি বাস (ঢাকা মেট্রো-গ-১৫-৩৮১০) রাজধানী ঢাকা হতে পঞ্চগড়ের উদ্দেশ্যে গাবতলী ছেড়ে যায়। বাসটি রাত আনুমানিক ৮ টা ৩০ মিনিটে সাভারে পৌঁছালে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ডাকাত দলের ৩ জন (মোঃ রিয়াজুল ইসলাম @ লালু, আবু সাঈদ মোল্লা ও অপর ১ জন) সদস্য এবং আনুমানিক ৮ টা ৫০ মিনিটে নবীনগর পৌঁছালে ডাকাত দলের আরো ৩ জন (শ্রী নয়ন চন্দ্র রায়, মোঃ ওমর ফারুক ও মোঃ ফিরোজ কবির) সদস্য যাত্রীবেশে বাসে ওঠে।

অতঃপর বাসটি আনুমানিক রাত ২ টা ৩০ মিনিটে গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার বিটিসি মোড় অতিক্রম করার পর বাসে যাত্রীবেশে থাকা ডাকাত দলের সদস্যরা ডাকাতির উদ্দেশ্যে বাসটি তাদের নিয়ন্ত্রণে নেয়ার চেষ্টা করে। তারা প্রথমে বাসের চালক মনজুর হোসেনকে ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে। এ সময় চালক বাসটি ঘুরিয়ে আনার চেষ্টা করলে তারা আবার চালকের কাঁধে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে বাসটির নিয়ন্ত্রণ নেয়।

এরপর ডাকাত দলের সদস্য মোঃ রিয়াজুল ইসলাম ওরফে লালু বাসটি চালাতে থাকে এবং ডাকাত দলের অন্যান্য সদস্যরা বাসে লুটপাট করতে করতে রংপুরের শটিবাড়ীস্থ ভাবনা ফিলিং স্টেশনে ইউটার্ন করে পূনরায় উল্টো পথে রওয়ানা করে। পলাশবাড়ী পৌঁছার আগে ডাকাতেরা ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে পীরগঞ্জের চম্পাগঞ্জ হাইস্কুলের সামনে রাত আনুমানিক ৩ টার দিকে যাত্রীসহ বাসটি রেখে পালিয়ে যায়। এ সময় ডাকাতেরা যাত্রীদের মুঠোফোন এবং নগদ আনুমানিক ৩০/৪০ হাজার টাকা লুট করে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে গুরুতর আহত অবস্থায় বাসের চালক মনজুর হোসেনকে নিকটস্থ পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কতর্ব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আসামীদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে র‍্যাব জানায়, তারা একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। এই সংঘবদ্ধ ডাকাত দলটির সদস্য ১০/১২ জন। ধৃত আসামী নয়ন চন্দ্র রায় এই ডাকাত দলের মূল হোতা। সে এই ডাকাত দলটিকে নিয়ন্ত্রন করত। এই ডাকাত দলের সদস্যরা দীর্ঘদিন যাবত উত্তরবঙ্গগামী বাসে সাধারণ যাত্রীবেশে উঠে ডাকাতি করে আসছিল। তারা গত ডিসেম্বর ২০২০ হতে এখন পর্যন্ত ৭/৮ টি বাসে ডাকাতি করেছে বলে জানায়। ইতোপূর্বে এই ডাকাত চক্রটি পলাশবাড়ী থেকে পীরগঞ্জ ৪৮ কিলোমিটার এলাকা গত ১৮ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখ রাতে স্পেশাল, ১ জানুয়ারি ২০২১ তারিখ সটিবাড়ি স্পেশাল, ১২ জানুয়ারি ২০২১ তারিখ সৈকত পরিবহন, ০৮ মার্চ ২০২১ তারিখ শ্যামলী পরিবহন, ০৪ এপ্রিল ২০২১ তারিখ জায়দা পরিবহন এবং ১৯ আগস্ট ২০২১ ডিপজল পরিবহনে ডাকাতি করছে মর্মে স্বীকার করে। সাধারণত তারা পলাশবাড়ি হতে পীরগঞ্জ মহাসড়কের নির্জন এলাকা বাস ডাকাতির জন্য বেছে নেয়। ডাকাতি করার পর তারা পুনরায় আশুলিয়ায় ফিরে আসে।

আসামী নয়ন চন্দ্র রায়’কে জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে র‍্যাব আরও জানায় যে, সে অপরাধী চক্রের মূল হোতা। চক্রের সদস্যরা আশুলিয়ায় বিভিন্ন গার্মেন্টসে খন্ডকালীন চাকুরী, ক্ষুদ্র ব্যবসা অটো চালক ইত্যাদি পেশায় জড়িত ছিল।

গ্রেপ্তারকৃত শাকিলসহ আরও কয়েকজন সদস্য গাইবান্ধার বিভিন্ন পেশায় জড়িত। আসামী মোঃ রিয়াজুল ইসলাম ওরফে লালু পেশায় একজন ট্রাক চালক। সে তার অন্যান্য সহযোগীদের সাথে বাস ডাকাতি করার সময় বাসের চালকের পরিবর্তে নিজে বাস চালিয়ে তাদের গন্তব্যে নিয়ে যেত।

এছাড়াও, গ্রেপ্তারকৃত শাকিল ডাকাতি স্থলে উপস্থিত থেকে তথ্য ও অন্যান্য সহায়তা প্রদান করে। গ্রেপ্তারকৃত অন্যান্য সদস্যরা স্বশরীলে ডাকাতিতে অংশগ্রহণ করে। গ্রেপ্তারকৃতরা একে অপরের যোগসাজশে দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন বাসে সাধারণ যাত্রীবেশে উঠে ডাকাতি করে আসছিল বলে স্বীকার করেছে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© ২০২০ সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত | দৈনিক জনতার বার্তা বিডি পরিবার
কারিগরি সহায়তায় রাফিউল ইসলাম