1. ahekram2006@gmail.com : ah ekram : ah ekram
  2. asadmd7195@gmail.com : JB Admin : JB Admin
  3. janatarbartabd24@gmail.com : jb editor : jb editor
ধর্মীয় উৎসব মধুপুর্ণিমা উৎযাপিত খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে! জনতার বার্তা - দৈনিক জনতার বার্তা
বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৩৭ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ

ধর্মীয় উৎসব মধুপুর্ণিমা উৎযাপিত খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে! জনতার বার্তা

মহালছড়ি প্রতিনিধি উত্তম চাকমা
  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১

মহালছড়ি প্রতিনিধি উত্তম চাকমা


মধু পুর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মীয় ইতিহাসের একটি বিরল ঘটনা। সারা দেশে এদিনটি বৌদ্ধ উপাসক-উপসিকারা বিহারের গিয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে পালন করে।
যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় জাতি,ধর্ম,বর্ণ নির্বিশেষে শুভমধুপুর্ণিমা উৎযাপিত করা হয়।খাগড়াছড়ি জেলা মহালছড়ি মিলনপুর বনবিহারে। সকালে বুদ্ধ পতাকা উত্তোলন দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করার হয়।বিহার অধ্যক্ষ শ্রদ্ধেয় শ্রদ্ধাতিশ্য ভান্তে সশিষ্য উপস্থিত অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। এতে ত্রিশরন প্রার্থনা
শীল গ্রহণ – বুদ্ধপুজা,সীবলি পুজা,মধুদান,পিন্ড দান, হাজার প্রদীপ দান, অষ্টপরিষ্কার দান, সংঘদানসহ নানাবিধ দান করা হয়।এ ছাড়াও অনুষ্টানে বিশ্বমহামারী করোনা উত্তরণের জন্য জগতে সকল প্রানী মঙ্গলার্থে প্রার্থনা করেন বৌদ্ধ উপাসক- উপাসিকা রা।
মধুপুর্ণিমা তাৎপর্য তথাগত বগবান বুদ্ধ যখন পারিলেয়্য নামক বনে বর্ষাব্রত পালন করা সময় একটি হাতি বুদ্ধকে সেবা দান পুজা করত।সেই সময় এক বানর হাতিকে দেখে তার ও দান করা ইচ্ছা জাগে সেই দিন ছিল ভাদ্র পুর্ণিমা। তখন বানরটি ভাদ্রপুর্ণিমা একটি মৌমাছি মৌচাক সংগ্রহ করে বুদ্ধকে দান করেন। বুদ্ধ কে মধু পান করতে দেখে বানরটি খুশিতে বৃক্ষ উপর লাফাতে লাফাতে বৃক্ষ শাখা ডাল ভেঙে মাটিতে পড়ে যায় এতে বানরের মৃত্যু হয়। মৃত্যু হয়ে স্বর্গের দেব পুত্র পুরে জন্মগ্রহণ করল। সেই দিনটি ছিল ভাদ্র পুর্ণিমা। ভাদ্র পুর্ণিমা কে মধু পুর্ণিমা নামে পরিচিত।
মধুদান বৌদ্ধ ধমীয় ইতিহাসে একটি বিরল ঘটনা মনে হলেও এ থেকে আমরা সেবা, ত্যাগও দান চিত্রের এক মহৎ শিক্ষা পেয়ে থাকি।পুর্ণ্যকামী সদ্বধর্ম প্রাণ উপাসক -উপাসিকা সেই মৈত্রী বার্তা আপন খুশিতে বিহারে গিয়ে এই দিন টি পুর্ণ্যের চেতনায় উচ্ছোঁসে উৎযাপন করে।
সব্বে সত্তা সুখী তা ভবন্তু-জগতে সকল প্রানী সুখি হোক।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© ২০২০ সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত | দৈনিক জনতার বার্তা বিডি পরিবার
কারিগরি সহায়তায় রাফিউল ইসলাম