1. ahekram2006@gmail.com : ah ekram : ah ekram
  2. asadmd7195@gmail.com : JB Admin : JB Admin
  3. janatarbartabd@gmail.com : jb editor : jb editor
পীরগঞ্জে হামলায় আটক সৈকত মণ্ডল ছাত্রলীগ নেতা - দৈনিক জনতার বার্তা
বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ১১:৪৩ অপরাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ

পীরগঞ্জে হামলায় আটক সৈকত মণ্ডল ছাত্রলীগ নেতা

মোঃ নাজমুল হুদা, রংপুর বিভাগীয় প্রধান।
  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২১

মোঃ নাজমুল হুদা, রংপুর বিভাগীয় প্রধান।

রংপুরের পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার উদ্দেশ্যে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় গ্রেফতার সৈকত মন্ডল ছাত্রলীগ নেতা ছিলেন বলে জানা গেছে। কারমাইকেল কলেজ শাখা ছাত্রলীগের দর্শন বিভাগের কমিটির সহ সভাপতি পদে ছিলেন তিনি। পীরগঞ্জের মাঝিপাড়ার ঘটনার একদিন পর (১৮ অক্টোবর) তাকে ছাত্রলীগের কমিটি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। ছাত্রলীগের কারমাইকেল কলেজ শাখার সভাপতি সাইদুজ্জামান সিজার ও সাধারণ সম্পাদক জাবেদ আহমেদ স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, দলীয় শৃঙ্খলার পরিপন্থী কার্যকলাপে জড়িত থাকার অভিযোগে কারমাইকেল কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তানভিরুল ইসলাম ও দর্শন বিভাগের কমিটির সহ সভাপতি মো. সৈকত মণ্ডলকে ছাত্রলীগ কারমাইকেল কলেজ শাখা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

১৮ অক্টোবর তাঁকে অব্যাহতি দেওয়া হলেও শনিবার বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। শনিবার (২৩ অক্টোবর) বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ রংপুর মহানগর কমিটির সভাপতি সাইদুজ্জামান সিজার।

তিনি বলেন, অব্যাহতি দেওয়া দু’জনই পীরগঞ্জের ঘটনা ফেসবুকে শেয়ার করেছেন, এবং উস্কানিমূলক কমেন্টডস করেছেন। এই অভিযোগেই তাদের ছাত্রলীগ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

এর আগে দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, নিজের ফেসবুক ফলোয়ার বাড়ানো এবং সম্প্রীতি বিনষ্ট করার উদ্দেশ্যই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে রংপুরের পীরগঞ্জের বড় করিমপুর গ্রামে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করা হয়েছিলো। রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দুপল্লীতে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার অন্যতম হোতা মো. সৈকত মন্ডল (২৪) ও সহযোগী মো. রবিউল ইসলামকে (৩৬) গ্রেফতারের পর এসব তথ্য পেয়েছে র‌্যাব। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) দিবাগত রাতে তাদেরকে গাজীপুরের টঙ্গী থেকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি জানান, ফেসবুকে ফলোয়ার বাড়াতে এবং নিজেকে জনপ্রিয় বানাতে প্রায়ই উস্কানিমূলক পোস্ট দিতো রংপুরের স্নাতকের শিক্ষার্থী সৈকত মন্ডল। সবসময় দুর্বল সময়ের অপেক্ষায় থাকতো সে। এই সুযোগ হিসেবে কুমিল্লায় পূজামন্ডপের অনাকাঙ্খিত ঘটনাকে বেছে নেয় সে। এজন্য সেদিন রাতে ফেসবুকে সৈকত মন্ডল পোস্ট দেয়- ‘এ মুহূর্তে গ্রাম পুলিশের কাছ থেকে পাওয়া সংবাদ, হিন্দুদের আক্রমণে এক মুসলিমকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে’। তার এই পোস্টকে ছড়িয়ে দিতে রংপুরের পীরগঞ্জের হিন্দু সম্প্রদায়ের বসবাসের এলাকার পাশের মসজিদে মাইকিং করে রবিউল ইসলাম। এরপরই স্থানীয় সাধারণ মানুষ উত্তেজিত হয়ে হিন্দুদের ঘর বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং লুটপাট করে।

সৈকত রাজনীতির সংগে সম্পৃক্ত কি না- এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সৈকত রংপুরের একটি ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী। রংপুরে ছাত্রলীগের নেতা হিসেবে নিজেকে প্রচার করতো। কিন্তু তার কোনো রাজনৈতিক পোস্ট-পদবি ছিলো না। রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে তার কোনো সম্পৃক্ততাও আমরা পাইনি ।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© ২০২০ সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত | দৈনিক জনতার বার্তা বিডি পরিবার
কারিগরি সহায়তায় রাফিউল ইসলাম