1. ahekram2006@gmail.com : ah ekram : ah ekram
  2. asadmd7195@gmail.com : JB Admin : JB Admin
  3. janatarbartabd@gmail.com : jb editor : jb editor
পীরগাছা উপজেলার ৮ নং কৈকুড়ী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে ভোট কারচুপির অভিযোগে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল। - দৈনিক জনতার বার্তা
মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০১:০০ পূর্বাহ্ন

পীরগাছা উপজেলার ৮ নং কৈকুড়ী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে ভোট কারচুপির অভিযোগে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল।

মোঃ রফিকুল ইসলাম লাভলু বিভাগীয় স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর।
  • আপডেটের সময় : রবিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২১

মোঃ রফিকুল ইসলাম লাভলু
বিভাগীয় স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর।

রংপুরের পীরগাছায় দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ৮ কৈকুড়ী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ভোট গণনায় কারচুপি ও জালিয়াতির অভিযোগে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে প্রায় ২০০০(দুই হাজার) এলাকাবাসী।

আজ রোববার দুপুরে ৩:২৫ মিনিটে উপজেলার কৈকুড়ী ইউনিয়নের দিলালপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন সড়কে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করে পরাজিত সদস্য প্রার্থী সাবেক ইউপি সদস্য মোঃ মোন্নাফ মিয়ার সমর্থকরা।
এসময় তারা ওই ওয়ার্ডের প্রাপ্ত ভোট পূণরায় গণনা করে ফলাফল প্রকাশ করার দাবি করেন তালা মার্কার প্রার্থী মোন্নাফ মিয়া। বিজয়ী প্রার্থী ও তার লোকজন মোন্নাফ মিয়াকে প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে বলে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে তার কর্মী ও সমর্থকরা।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে উপজেলার ৮ কৈকুড়ী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে সাধারন সদস্য পদে ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। স্থানীয় দিলালপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নজর মামুদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মিলে দুটি কেন্দ্রে একটি ওয়ার্ডের ভোট গ্রহন করা হয়। ভোটের ফলাফলে মোঃ মোজাম্মেল হক বৈদ্যুতিক পাখা প্রতীকের ১০৮১ ভোট পেয়ে বিজয়ী এবং মোঃ মোন্নাফ মিয়া তালা প্রতীকে ৯৩২ ভোট দেখানো হয়। এর মধ্যে দিলালপাড়া কেন্দ্রের ভোট সুষ্ঠু হলেও নজর মামুদ কেন্দ্রে ভোট কারচুপি ও জালিয়াতির অভিযোগ আনেন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মোঃ মোন্নাফ মিয়া। ওই দিন সংশ্লিষ্ট প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যরা তড়িঘড়ি করে ফলাফল ঘোষণা দিয়ে চলে যান। এরই প্রতিবাদে আজ রোববার দুপুরে দিলালপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে জড়ো হন কয়েক শতাধিক এলাকাবাসী। তারা ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেন। এসময় বক্তব্য দেন, পরাজিত প্রার্থী মোঃ মোন্নাফ মিয়া, তার রাখা এজেন্ট আব্দুল আজিজ, গ্রামবাসী নাজমুল ইসলাম, তবিবর রহমান, রিয়াজুল ইসলাম, মোস্তাফিজার রহমান তোতা, শাহিনুর বেগম, আমিনা বেগম ও পারুল বেগম। এসময় বক্তাগণ বলেন, প্রশাসনকে টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে আমাদের ফলাফল পরিবর্তন করে দেয়া হয়েছে। এতে আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে। আমরা ওই কেন্দ্রে ভোট পূনরায় গণনা করে ফলাফল ঘোষণার দাবি জানাচ্ছি।

বিজয়ী প্রার্থী মোজাম্মেল হক বলেন, আমি জনগনের প্রকৃত ভোটে নির্বাচিত হয়েছি। আর মোন্নাফ মিয়াকে কোন ধরনের হুমকি-ধামকি দেয়া হয়নি।

এ বিষয়ে ঐ কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং কর্মকর্তা নেকমামুদ হাট অগ্রণী ব্যাংকের সিনিয়র কর্মকর্তা তমাল কুমার চক্রবর্তী বলেন, সব প্রার্থীর নিয়োজিত এজেন্টের উপস্থিতিতে ভোট গণনা শেষে ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© ২০২০ সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত | দৈনিক জনতার বার্তা বিডি পরিবার
কারিগরি সহায়তায় রাফিউল ইসলাম