1. ahekram2006@gmail.com : ah ekram : ah ekram
  2. asadmd7195@gmail.com : JB Admin : JB Admin
  3. janatarbartabd@gmail.com : jb editor : jb editor
পেকুয়ায় যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে অমানুষিক নির্যাতন - দৈনিক জনতার বার্তা
সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৬:১৪ পূর্বাহ্ন

পেকুয়ায় যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে অমানুষিক নির্যাতন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ৪ মে, ২০২২

পেকুয়া প্রতিনিধিঃ

কক্সবাজারের পেকুয়ায় যৌতুকের জন্য মাদকাসক্ত স্বামী ও শাশুড়ির অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন এক সন্তানের মা কুনছুমা বেগম (২২)। তাকে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে পেকুয়া থানায় একটি অভিযোগ দেওয়া হয়। এর আগেও একাধিকবার অসহায় ওই গৃহবধূর ওপর নির্যাতন করেন তার স্বামী ওয়াহেদুল ইসলাম ও শাশুড়ি হাজেরা বেগম।

থানায় অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নের কাছারি মোড়া সবুজ পাড়া গ্রামের মৃত মোস্তাফিজুর রহমানের ছেলে ওয়াহেদুল ইসলাম। ২০২০ সালে তার সঙ্গে কুনছুমা বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে ওয়াহেদুল ইসলাম যৌতুক দাবি করে আসছিল। তাই মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে কুলছুমা বেগমের বাবা বৃদ্ধ জকরিয়া ওয়াহেদকে নগদ ৫০হাজার টাকা সহ প্রায় দুই লক্ষ টাকার আসবাবপত্র দেন। কিন্তু এতেও মন ভরেনি তার। আরও টাকার জন্য কারণে-অকারণে সে নির্যাতন করতে থাকে স্ত্রীর ওপর।

সর্বশেষ ৩মে বিকাল ৫টায় শাশুড়ি হাজেরা বেগম ও স্বামী ওয়াহেদ ৫০হাজার টাকা যৌতুক দাবি করে কুলছুমা বেগমের কাছে। স্ত্রীকে বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনতে বলেন ওয়াহেদ। এতে অস্বীকৃতি জানালে ৪ই মে সকালে কুনছুমা বেগমের রুমে ঢুকে শাশুড়ি ও স্বামী মিলে কুনছুমা বেগমের ওপর অমানুষিকভাবে মারধর করে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় নীলাফুলা গুরুতর জখম করে। পরে প্রতিবেশীরা আহত কুনছুমা বেগমকে উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ কুনছুমা বেগম বলেন, আমার বাবা একজন বৃদ্ধ কৃষক। আমাদের পরিবারের খরচ চালাতে হিমশিম খেতে হয়। কি করে আরও ৫০হাজার টাকা যৌতুক দেব। আমার শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

এব্যাপারে পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মোহাম্মদ আলী বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© ২০২০ সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত | দৈনিক জনতার বার্তা বিডি পরিবার
কারিগরি সহায়তায় রাফিউল ইসলাম