1. ahekram2006@gmail.com : ah ekram : ah ekram
  2. asadmd7195@gmail.com : JB Admin : JB Admin
  3. janatarbartabd@gmail.com : jb editor : jb editor
পেকুয়ায় শপিং সেন্টারের জায়গা দখলের চেষ্টায় ভুক্তভোগীদের সংবাদ সম্মেলন - দৈনিক জনতার বার্তা
সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০১:৫১ অপরাহ্ন

পেকুয়ায় শপিং সেন্টারের জায়গা দখলের চেষ্টায় ভুক্তভোগীদের সংবাদ সম্মেলন

পেকুয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধিঃ
  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ২৯ জুলাই, ২০২২

পেকুয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধিঃ

কক্সবাজারের পেকুয়া বাজারের সদর ইউনিয়ন পরিষদ লংলগ্ন অমিম শপিং সেন্টার নামে চুক্তিবদ্ধ জায়গা জবর দখলের চেষ্টা ও মিথ্যা অপপ্রচারের অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগীরা।

বৃহষ্পতিবার (২৮ জুলাই) সন্ধ্যা পেকুয়া প্রেসক্লাব কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের এ আয়োজন করেন তারা সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী আবু ছালেক বলেন,আমরা ৮ ভাইবোন পৈত্রিক সুত্রে প্রাপ্ত জমি ২.৩৩ শতক। প্রতি ভাইয়ের অংশ ০.৪১ শতক আর বোনের অংশ ০.২০ শতক। উন্নয়নের জন্য কয়েক মাস আগে ৬ ভাই বোন অমিম বিল্ডার্স ডেভলপার কোম্পানির সাথে পেকুয়া অমিম শপিং সেন্টার নির্মাণের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। আমদের চুক্তিকৃত জায়গা ডেভলপার কোম্পানিকে দখলও বুঝিয়ে দিই। কিন্তু আমার ভাই আব্দু ছাত্তার ও বোন মনজুরা বেগম ওই জায়গা জবর দখলে মেতে ওঠেছে। আমরা ছয় ভাই বোনের পুরো অংশ তারা জবর দখলের চেষ্টা চালায়। দোকানঘর তৈরী করে পুরো জায়গা জবর দখলের পায়তারা চালাচ্ছে। নানা ধরনের হুমকি ধমকি অব্যাহত রাখে। আমাদের ওপর সন্ত্রাসী কায়দায় কয়েকদফা হামলাও চালায়। আমরা প্রশাসনের সহযোগিতা চাইলে পুলিশ গিয়ে আইনশৃঙ্খলা অবনতির স্বার্থে দোকানে তালা ঝুলিয়ে দেয়। দু’পক্ষকে স্বঅবস্থানে থাকতে নির্দেশনা দিয়েছে। বিরোধপুর্ণ এ জায়গা নিয়ে আদালতে মামলাও চলমান।

তিনি আরো বলেন, গত ২৬ জুলাই বিকেলে হঠাৎ কবরি নামে এক ভদ্র মহিলা জায়গায় এসে মোবাইল ফোনে লাইভে যান। এ সময় তিনি অশালিন কথাবার্তা বলে আব্দু ছাত্তারকে তালা ভেঙ্গে দোকানে ঢুকিয়ে দেয়। আমার প্রশ্ন, ওই মহিলা কে? তিনি কি আইনের লোক। কিসের ক্ষমতায় একটি বিরোধীয় জায়গায় লাইভে এসে গায়ের জোরে দোকানে লোক ঢুকিয়ে দেয়। তার কোন ম্যাজেষ্ট্রিসি পাওয়ার আছে নাকি প্রশ্ন রাখেন তিনি।
অপর ভুক্তভোগী মিয়াজান ও মিজানুর রহমান বলেন,আবদুল কাদের গং, শাহেদ, এয়াকুব আলী, রেজাউল করিম গংসহ ২৫ শতক জায়গা উন্নয়নের জন্য আমরা অমিম বিল্ডার্স ডেভলপার কোম্পানির সাথে মার্কেট নির্মাণে চুক্তিবদ্ধ হয়। অমিম শপিং সেন্টার মার্কেটের কাজও চলমান রয়েছে। আমরা পৈত্রিক ও খরিদা সুত্রে প্রাপ্ত ১০ শতকের মালিক। আমাদের প্রাপ্ত জায়গায় ৪/৫ বছর আগে দোকানঘর নির্মান করে ভাড়া দিই জাকের আহমদ নামের জনৈক ব্যক্তিকে। মাসে মাসে ভাড়ার টাকাও পরিশোধ করতো।

জাকের আহমদ মারা গেলে তার ছেলে আব্দু রাজ্জাক দোকানঘরটি জাহেদ নামের এক ব্যক্তিকে উপভাড়া দেয়। আমরা আব্দু রাজ্জাককে অনেকবার দোকান ছেড়ে দিতে বলি। তিনি কাল ক্ষেপন করে। এখন দেখি আমাদের জায়গা জবর দখলে মেতেছে। জায়গাটি তার দাবি করছে। গত ০৩/০৯/১৯৭৯ সালে ৩৫৯৭ কবলামুলে তার পিতা আব্দু রশিদ বিক্রি করে নিঃস্বত্তবান হন। আমাদের ডেভলপার কোম্পানির সাথে চুক্তিকৃত জায়গা ছেড়ে না দিয়ে গায়ের জোরে দখল নেয়ার চেষ্টা করছে আব্দু রাজ্জাক গং। হয়রানি করা হচ্ছে আমাদের।

তারা আরো বলেন,কয়েকদিন আগে হঠাৎ কবেরি নামে এক মহিলা জায়গায় এসে মোবাইলে লাইভে যান। এ সময় তিনি ডেভলপার কোম্পানি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমকে নিয়েও অযাচিত মন্তব্য করেন। না জেনে, না বুঝে, কাগজপত্র যাচাই বাছাই না করে লাইভে এসে মুখ দিয়ে যা ইচ্ছে তাই বলে গেল। আমাদের প্রশ্ন তিনি কে? একজনের জায়গায় আরেকজনকে ঢুকিয়ে দিল। তিনি আসলে এসব পারেন কিনা? প্রশাসন ও সচেতন মহলের কাছে প্রশ্ন রাখলাম আমরা।

তারা বলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমও ডেভলপার কোম্পানির একজন শেয়ারদার। আমরা বৈধ কাগজপত্র নিয়ে ডেভবলপার কোম্পানির সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়েছি। ডেভলপার ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানকে নিয়ে কবেরি নামের মহিলার ওই বক্তব্যে আমরা মর্মহত হয়েছি। আমরা এসবের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আমরা জবর দখল ঠেকাতে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© ২০২০ সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত | দৈনিক জনতার বার্তা বিডি পরিবার
কারিগরি সহায়তায় রাফিউল ইসলাম