1. ahekram2006@gmail.com : ah ekram : ah ekram
  2. asadmd7195@gmail.com : JB Admin : JB Admin
  3. janatarbartabd@gmail.com : jb editor : jb editor
সদর ইউনিয়ন আ'লীগের প্রার্থী হচ্ছেন সাবেক ছাত্রনেতা শাহাদাত - দৈনিক জনতার বার্তা
সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৮:০৯ পূর্বাহ্ন

সদর ইউনিয়ন আ’লীগের প্রার্থী হচ্ছেন সাবেক ছাত্রনেতা শাহাদাত

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ১২ এপ্রিল, ২০২২

পেকুয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধিঃ

কক্সবাজারের পেকুয়ায় ইউনিয়ন আ’লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিল অধিবেশনে সাধারন সম্পাদক পদে প্রার্থী হচ্ছেন সাবেক ছাত্রনেতা আওয়ামী রাজনীতির দু:সময়ের কান্ডারী এস,এম শাহাদাত হোসেন।

কাউন্সিলে প্রার্থীতা ঘোষণা করে অনেক আগে থেকে আওয়ামীলীগের সদরের মাঠে শক্তিশালী অবস্থান তৈরী করে ফেলেছেনও সাবেক ওই ছাত্রনেতা। আগামী এক মাসের মধ্যেই হতে পারে আওয়ামীলীগের পেকুয়ার তৃণমূলের সম্মেলন। দলকে শক্তিশালী ও সংগঠনকে বেগবান করতে রাজনীতিক দল আওয়ামীলীগ সংগঠন পুন:গঠন প্রক্রিয়ার দিকে ধাবিত হচ্ছে। এর চুড়ান্ত লক্ষ্য পৌছতে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ ইতিমধ্যে সাংগঠনিক প্রক্রিয়া করছেন জোরদার। এস,এম শাহাদাত হোসেন আওয়ামী রাজনীতির দু:সময়ের কান্ডারী।

মাঠের দুর্দিনের আদর্শিক কর্মী। যে কোন দু:সময় ও কঠিন মুহুর্তে এস, এম শাহাদাত এসেছেন দলের পক্ষে রাজপথে। তার পিতা ও পৈত্রিক চেতনা থেকে এ রাজনীতির দর্শন ও চিন্তাকে আলিঙ্গন করছিলেন শৈশব সময় থেকে। এস,এম শাহাদাত পেকুয়ায় অত্যন্ত পরিচিত মুখ। তাকে অনেক আগে থেকে পেকুয়ার মানুষ চিনেন ও জানেন। সাবেক ছাত্রনেতা থেকে তিনি রাজনীতিতে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। এক সময় স্কুল ও কলেজে অধ্যয়নের সময় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের রাজনীতির সক্রিয় নেতা ছিলেন। মুজিবাদর্শকে ধারণ করে ছাত্রলীগের রাজনীতিকে মাঠে ছড়িয়ে দিতে করছিলেন কাজ। রাজনীতির পাশাপাশি শিক্ষাবিস্তার সামাজিক উন্নয়ন ও মানুষের অধিকারের পক্ষেও কাজ করে চলছিলেন।

এস,এম শাহাদাত এর পিতা জহিরুল ইসলামও পেকুয়ার প্রখ্যাত ব্যক্তিত্ব। পিতা জহিরুল ইসলাম ছিলেন একদিকে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও অন্যদিকে ছিলেন জনপ্রতিনিধিও। এক সময় পেকুয়া সদর ইউনিয়নে এস,এম শাহাদাতের পিতা জহির মেম্বার ছিলেন মানুষের জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব। সত্তরের দশকে স্বাধীনতা সংগ্রামে অকুতোভয় সৈনিক ছিলেন জহির মেম্বার। প্রচন্ড প্রতিবাদী ও গরীব দরদী ছিলেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন দরিদ্র মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিতে জহির মেম্বাররা ছিলেন পেকুয়ার বঙ্গবন্ধুর আদর্শিক কর্মী।

৭৫ এর দিকে বঙ্গবন্ধু দ্বিতীয় বিপ্লবের ডাক দেন। সেই সময় সমতাভিত্তিক অর্থনীতির ডাক উঠে। বঙ্গবন্ধুর ঘোষণা ছিল কেউ খাবে আর কেউ খাবে না, তাই হবে না, তাই হবেনা। লাঙ্গল যার জমি তার। এ শ্লোগান ছিল সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠিকে ঐক্যবদ্ধ করার চুড়ান্ত লক্ষ্য। সে সময় এস,এম শাহাদাতের পিতা জহির মেম্বাররা এ শ্লোগানের পেকুয়ার রুপকার ও স্বপ্ন বাস্তবায়নকারী ছিলেন। বঙ্গবন্ধু আ’লীগকে শ্রমজীবি মানুষের সংগঠন হিসেবে ঘোষণা করেন। এর চুড়ান্ত লক্ষ্যে পৌছতে আ’লীগের নামকরণ করেছিলেন কৃষক-শ্রমিক আ’লীগ

দ্বিতীয় বিপ্লবে গঠন করেছিলেন বাকশাল। সেই দর্শন ও চেতনার অন্যতম মূর্তপ্রতীক ছিলেন এস,এম শাহাদাতের পরিবার। এক সময় এডভোকেট জহিরুল ইসলাম বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর হিসেবে সাংসদ ও পরবর্তীতে গভর্ণর নিযুক্ত হন। মহকুমা অঞ্চলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও সমাজতন্ত্রভিত্তিক অর্থনীতি প্রবর্তন ব্যবস্থা জোরদারের প্রক্রিয়া চালান সারা বাংলাদেশে।

এস,এম শাহাদাতের পরিবার ওই শ্লোগানকে মানুষের মাঝে পৌছিয়ে দিতে কাজ করেছিলেন। তার পিতা জহিরুল ইসলাম একজন দেশপ্রেমিক মানুষ ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় উত্তাল দিনগুলিতে পাকিস্থান বাহিনীকে মোকাবেলা করতে স্বশস্ত্র অবস্থায় মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। জহির মেম্বার মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিলেও তবে মুক্তিযুদ্ধা তালিকায় তিনিসহ অসংখ্য মুক্তিযুদ্ধাকে তালিকাভূক্ত করা যায়নি। কিন্তু শাহাদাতের পিতা ছিলেন একজন সাহসীক মুক্তিযোদ্ধা। সাবেক ছাত্রনেতা এস,এম শাহাদাত এক সময় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের রাজনীতির আদর্শিক কর্মী। জোট সরকারের সময় ৭-৮ টি গায়েবী মামলায় ছিলেন আসামী। সদর ইউনিয়ন আ’লীগের কাউন্সিল ও সম্মেলনে তিনি একবার ভোট করেন। সামান্য ব্যবধানে ছিটকে পড়েন।

১৯৯২ থেকে ৯৪ সাল পর্যন্ত জিএমসি স্কুলে ছাত্রলীগের সম্পাদক ছিলেন। ৯৪-৯৫ সালের দিকে সাতকানিয়া সরকারী কলেজে বাণিজ্য বিভাগের ছাত্র ছিলেন। ৯৫-৯৬ সনে একই কলেজ থেকে তিনি উত্তীর্ণ হন। ৯৭-২০০০ সাল পর্যন্ত সাতকানিয়া সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সহ সভাপতি ছিলেন। ২০০১-২০০৩ সালের দিকে চট্টগ্রাম কমার্স কলেজ ছাত্রলীগের নেতা ছিলেন। ২০০২-২০০৪ সালের দিকে চট্টগ্রাম আইন কলেজে ছাত্রলীগের সহসভাপতি ছিলেন। স্বেচ্ছাসেবকলীগ পেকুয়া উপজেলা শাখার যুগ্ম সম্পাদক ছিলেন। সদর ইউনিয়ন আ’লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ছিলেন। আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ কক্সবাজার জেলা শাখার কার্যকরী সদস্য ছিলেন। বর্তমানে জাতীয় শ্রমিকলীগ পেকুয়া উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আমরা ক’জন মুজিব সেনা সংগঠনের সাতকানিয়া উপজেলার সাধারন সম্পাদক ছিলেন। চট্টগ্রামস্থ পেকুয়া ছাত্র যুব কল্যাণ পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। আলোকিত পাঠশালা আন্নরআলী মাতবরপাড়ার উপদেষ্টা হিসেবে আছেন। পেকুয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এস,এম, সি কমিটিতে সভাপতি হিসেবে দায়িত্বরত আছেন। পেকুয়া সরকারী মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষানুরাগী হিসেবে আছেন। এস,এম শাহাদাত কক্সবাজার জেলার আওয়ামী রাজনীতির অন্যতম নীতিনির্ধারক জেলার প্রখ্যাত আইনজীবি প্রয়াত আ’লীগ নেতা এডভোকেট আমজাদ হোসেনের মামাতো ভাই। তিনি সকলের দোয়া ও আন্তরিক সমর্থন কামনা করেন।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
© ২০২০ সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত | দৈনিক জনতার বার্তা বিডি পরিবার
কারিগরি সহায়তায় রাফিউল ইসলাম